সংবাদ :
জাতীয় : জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত- বাংলাদেশের আকাশে আজ পবিত্র জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে, ১০ জুলাই রবিবার সারাদেশে পবিত্র ঈদুল আযহা উদযাপিত হবে ইসলামিক বিশ্ব : আরাফাতে খুতবা দিবেন শায়খ ড. মুহাম্মাদ আবদুল করীম , হজের খুতবা সরাসরি সম্প্রচার হবে বাংলাসহ ১৪ ভাষায় আন্তর্জাতিক : আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতায় ৩য় স্থান অর্জনকারী সালেহ আহমদ তাকরিমকে সংবর্ধনা প্রদান করল ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন

  • টেক্সট সাইজ
  • A
  • A
  • A
  • |
  • রং
  • C
  • A
  • A
  • A

পবিত্র অাশুরার শিক্ষা ও তাৎপর্য
প্রিন্ট
প্রকাশঃ : রবিবার ০৮/১০/২০১৭


মোহাম্মদ  সোলাইমান কাসেমী : হিজরী সনের প্রথম মাস মহররম। কালের অাবর্তে হারিয়ে গেল অারো একটি হিজরী বছর। এ মহররম মাস থেকে শুরু ১৪৩৯ হিজরীর যাত্রা। বহু ঐতিহাসিক তাৎপর্যময় ঘটনা সংঘটিত হয়েছে মহররম মাসের ১০ তারিখে। ইসলামী বর্ষ পরিক্রমায় এ দিন অাশুরা নামে অভিহিত। এ দিনে হযরত অাদম (অা:) এর পৃথিবীতে অাগমন এবং তাঁর তাওবা কবুল থেকে বহু গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা সংঘটিত হলেও কারবালা প্রান্তরের মর্মান্তিক হৃদয়  বিদারক ঘটনাই মুসলিম বিশ্ব স্মরণ করে অাসছে এবং পবিত্র অাশুরা হিসেবে পালন করছে। ধর্মের নামে অধর্ম ও অন্যায়ের অশুভ শক্তি ইসলামের সত্যবাণী ও ন্যায় ধর্মকে অাঘাত করা হয়েছিল বলে কারবালার রক্তাক্ত ঘটনার প্রেক্ষাপট তৈরি হয়েছিল। ইসলামের চার খলিফার স্বর্ণযুগ অতীত। দূরাত্না এজিদ তখন রাজতন্ত্র, স্বৈরতন্ত্র ও পরিবারতন্ত্র প্রতিষ্টার স্বপ্নে বিভোর। প্রিয় নবীর দৌহিত্র হযরত ইমাম হোসাইন (রা:) এ অন্যায় মেনে নিতে পারেনি। ন্যায় ও সত্যের পতাকা সমুন্নত রাখায় লক্ষ্যে অবিচল ও অাপসহীন থাকায় চাপিয়ে দেয়া হল এক অসম যুদ্ধ। ইমাম হোসাইন (রা:) তাঁর স্বজন ও সহযোদ্ধারা মৃত্যু অবধারিত জেনেও মহানবীর সুমহান অাদর্শ রক্ষার দৃঢ প্রত্যয়ে শাহাদতের অমীয় সুধা পান করেন। সত্য প্রতিষ্টার জন্য পরিবার-পরিজন নিয়ে মহান অাত্নত্যাগের যে দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন তা অনুকরণীয়। তাই পবিত্র অাশুরার শিক্ষা হচ্ছে অন্যায় ও অসত্যের কাছে মাথা নত না করা-মিথ্যার কাছে নতি স্বীকার না করা। অাজকের এ দিনে প্রকৃত ধার্মিক ও ঈমানদার মুসলমানকে এ সত্য উপলদ্ধি করতে হবে। অন্যায় -অসত্য রুখে দাঁড়াতে হবে। সত্যের উজ্জ্বল অালোয় দূর হোক মিথ্যার কালিমা। এটিই হোক অামাদের কামনা ও প্রার্থনা। ইসলামের ইতিহাসে অনেক তাৎপর্যময় ঘটনা সমূহের মধ্যে উজ্জ্বল হয়ে অাছে পবিত্র অাশুরা। এ দিন কারবালার প্রান্তরে হযরত ইমাম হোসাইন (রা:) এর শাহাদত হওয়ার কারণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে হলে ও এ পৃথিবী সৃষ্টি, হযরত ঈসা (অা:) এর অাসমানে জীবিত অবস্হায় উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া, হযরত অাইয়ূব ( অা:) এর কঠিন রোগ থেকে মুক্তি, হযরত নূহ (অা:) এর নৌকা ঝড় তুফানের কবল থেকে মুক্তি পাওয়াসহ অসংখ্য ঐতিহাসিক ঘটনায় ভরপুর মহররমের ১০ তারিখ।এদিনটি মহিমান্বিত ও অবিস্মরণীয়। এছাড়াও এ পৃথিবীর মহাপ্রলয় রোজ কিয়ামত মহররমের ১০ তারিখ ঘটবে বলে উল্লেখ রয়েছে কোরঅান ও হাদীসে। মহররমের ১০ তারিখ অাল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মদ ( সা:) এর প্রিয় দৌহিত্র হযরত ইমাম হোসাইন (রা:) এর পবিত্র শাহাদতের কারণে শোকের স্মৃতি মুসলিম হৃদয়ে জাগ্রত করে। অাশুরার হৃদয় বিদারক ঘটনার কারণে হিজরী নববর্ষের প্রথম মাস শোক ও বিষাদময় স্মৃতির অাবহে অাচ্ছাদিত হয়। ১০ মহররমের তাৎপর্যে অারও জানা যায়,  এদিনেই অাল্লাহ তায়ালা অাদম ( অা:) কে সৃষ্টি করেছেন এবং এদিনেই মা হাওয়া ( অা:) সঙ্গে মিলিত হন হযরত অাদম (অা:)। অাবার এদিনেই অাল্লাহ তায়ালা অাদম (অা:) তাওবা কবুল করেন। এ তারিখেই নূহ ( অা:) জাহাজ জুদি পাহাড়ের প্রান্তরে এসে থেমে যায়। এদিনেই ইব্রাহিম ( অা:) কে নমরুদ অগ্নিকুণ্ডে নিক্ষেপ করে এবং ইব্রাহিম ( অা:) তা হতে রক্ষা পান।এদিনেই মূসা (অা:) বনি ইসরাঈল বাসীদের নিয়ে নীল নদী পাড়ি দেন এবং মূসা (অা:) কে ধাওয়াকারী ফেরাউন দলবল নিয়ে নীল নদীতে ডুবে যায়। এদিনে ইউনুছ (অা:) মাছের পেট থেকে রক্ষা পেয়েছেন।  সর্বোপরি ১০ মহররম পৃথিবী ধ্বংস হবে বলে উল্লেখ রয়েছে কুরঅান ও হাদীসে। 

লেখক: ইমাম ও খতীব : সূফী ফতেহ অালী ওয়াইসী ( রা:) জামে মসজিদ।

৪৩৯

কোন তথ্যসূত্র নেই

আপনার জন্য প্রস্তাবিত

ইসলামিক ফাউন্ডেশন

To preach and propagate the values and ideals of Islam, the only complete code of life acceptable to the Almighty Allah, in its right perspective as a religion of humanity, tolerance and universal brotherhood and bring the majority people of Bangladesh under the banner of Islam

অফিসিয়াল ঠিকানা: অফিসিয়াল ঠিকানা : ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ, আগারগাঁও, শের-এ- বাংলা নগর, ঢাকা -১২০৭