সংবাদ :
জাতীয় : জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত- বাংলাদেশের আকাশে আজ পবিত্র জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে, ১০ জুলাই রবিবার সারাদেশে পবিত্র ঈদুল আযহা উদযাপিত হবে ইসলামিক বিশ্ব : আরাফাতে খুতবা দিবেন শায়খ ড. মুহাম্মাদ আবদুল করীম , হজের খুতবা সরাসরি সম্প্রচার হবে বাংলাসহ ১৪ ভাষায় আন্তর্জাতিক : আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতায় ৩য় স্থান অর্জনকারী সালেহ আহমদ তাকরিমকে সংবর্ধনা প্রদান করল ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন

  • টেক্সট সাইজ
  • A
  • A
  • A
  • |
  • রং
  • C
  • A
  • A
  • A

ইসলামের দৃষ্টিতে বৃক্ষ রোপণ।
প্রিন্ট
প্রকাশঃ : শনিবার ০৪/০৮/২০১৮

পৃথিবীতে বেচে থাকতে খাদ্য বস্ত্র বাসস্থান ও চিকিৎসা হচ্ছে মৌলিক চাহিদা। এ চাহিদার যোগানের জন্য  কৃষি হচ্ছে অন্যতম উপাদান । আল্লাহ পাক এ জমিনে আমাদের জন্য  অগনিত সম্পদ রাজী গচ্ছিত রেখেছেন জলে, স্থলে বন বাদারে । এগুলো সংগ্রহ করে সংরক্ষন ও কাজে লাগানোর জ্ঞান ক্ষমতা দিয়েছেন আমাদের কে । যেহেতু মানব জাত হচ্ছে আল্লাহর শ্রেষ্ট সৃষ্টি। আমরা গাছ গাছালি বন বনানী সৃষ্টি না করতে পারলেও  যথাযথ চাষাবাদ,  সংরক্ষণ ও ভোগের অধিকার আল্লাহ আমাদেরকে দিয়েছেন ।আর বিবেক সমেত আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করার নির্দেশনা দিয়েছেন ।

এরশাদ হচ্ছে - আফারা'ইতুম মা তাহরুসূন আ আ'ন্তুম তাযরাউনা আম নাহনুয যারিউন .( সূরা ওয়াকেয়া) অর্থাৎ তোমরা কি দেখনা যে তোমরা যা চাষাবাদ কর তাকি তোমরা  উৎপন্ন কর নাকি আমি উতপাদন করি? এখানে আল্লাহ মানুষকে তার শ্রম ব্যয় করে ফসল উতপাদনের ব্যপারে আল্লাহর কার্যকারিতার স্মরণ করার জন্য উদ্ভূদ্ধ করেছেন।

 এই ফসল ফলাদী বন বনানী মানুষের সংরক্ষন করা প্রয়োজন। কারণ এগুলো মানুষের নিজেদের ই প্রয়োজনে আল্লাহ প্রদত্ত নি'য়ামত। আল্লাহ ঘোষণা করেন--"মানুষের উচিত তার খাদ্যের প্রতি লক্ষ্য করা। আমি অঝোর ধারায় বৃষ্টি বর্ষন করেছি। অতঃপর  মাটিকে বিদীর্ণ করেছি। আর তাতে উৎপন্ন করেছি শস্যাদি,  আংগুর ,শাক শবজি ,জলপাই ,খেজুর বহু বৃক্ষ বিশিষ্ট বাগান, ফল ফলাদি ও ঘাস । এসব তোমাদের ও তোমাদের প্রতিপালিত পশুকুলের জীবন ধারনের জন্য। (সূরা আবাসা)

আম্মান খালাকাস সামাওয়াতি ওয়াল আরদা ওয়ানযালা লাকুম মিনাস সামাই মায়ান ফা'আমবাতনা হাদাইকা যাতা বাহজাতিন। অর্থাত- বলতো কে সৃষ্টি করেছেন নভোমন্ডল ও ভূমন্ডল এবং আকাশ থেকে বর্ষণ করেছেন তোমাদের জন্য পানি? অতঃপর আমি তা দ্বারা মনোরম বাগান সৃষ্টি করেছি। (সূরা নমল)

সুতরাং বুঝা গেল আল্লাহ এ পৃথিবীর জমিকে আমাদের জন্য উর্বর করে দিয়েছেন। এতে আমরা হরেক রকম ফলদ,বনজ ঔষধি বৃক্ষরাজী পাই। আল্লাহ এগুলো দিয়ে ধরাকে সাজিয়েছেন সুজলা সুফলা শষ্য শ্যামলা করে। তাই মানুষকে তার নিজেদের প্রয়োজনেই  পরিবেশ সংরক্ষনের জন্য গাছ গাছালি রোপন ও পরিচর্যা করা দরকার। তাই আমাদের প্রয়োজনের তাগিদেই আমরা রাস্থা ঘাট খাল বিলের পাড়ে স্কুল কলেজ মাদ্রাসা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপযুক্ত কোন জাগা খলি না রেখে বৃক্ষ রোপন করব, সংরক্ষণ করব । আজ যত্রতত্র দেখা যায় বনজংগল বাগান সব উজার করে দেয়া হচ্ছে নিজেদের স্বার্থে। যাতে বিনাষ হচ্ছে আমাদের পরিবেশ। বঞ্চিত হচ্ছি আমরা আসবাব পত্রের নির্মাণ সামগ্রী ,  খাদ্য , ফলফুল থেকে। অথচ গাছ গাছালী একদিকে আমাদের পরিবশের ভারসাম্য রক্ষা করে,খাদ্যের যোগান দেয়। আসবাবপত্রের চাহিদা পূরণ করে,অর্থনৈতিক ভাবে  সাবলম্বি বানায় অপরদিকে পরিবেশের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে,আর মূলগতভাবে আল্লাহর প্রশংসা ও যিকির করে থাকে। সুতরাং গাছ গাছালি আমাদের জন্য ইহ পরকালীন  উপকারে নিবেদিত ।

এ জন্যই দেখি আল্লাহর নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দুই মৃত ব্যক্তির কবর অতিক্রম কালে উভয়ের কবরে জাহান্নামের আযাব দেখতে পান। সে জন্য তিনি একটি তাজা খেজুর ডালকে দুই ভাগে বিভক্ত  করে দুটি কবরে পূতে দেন। সাহাবা গণ প্রশ্ন করলে নবীজি উত্তরে বলেন উক্ত দুটি কবরে সাধারণ দুটি কারণে আযাব হচ্ছিল। একজন ইস্তিঞ্জা সতর্কতার সাথে করত না ।অপরজন মানুষের মধ্যে গীবত করে বেড়াত। আমি খেজুরের তাজা ডাল পূতে দিয়েছি আশা করা যায় ডাল যতক্ষণ জীবিত থাকবে ততক্ষন তাদের কবরের আযাব লাঘব হবে। মানে জীবন্ত তাজা খেজুরের ডাল আল্লাহর যিকিরে মত্ত থাকে । (বুখারী শরীফ)

মোদ্দাকথা পবিত্র কালামে পাকের ঘোষণা  হল সবকিছুই আল্লাহর তাসবীহ ও গুণ গান করে। এর মধ্যে গাছ পালাও অনর্ভূক্ত ।

খাদেমে রাসূল হযরত হযরত আনাস বিন মালেক রাদিয়াল্লাহু তা'লা আনহু থেকে বর্ণিত আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন -- কেউ যদি একটা বৃক্ষ রোপন করে কিংবা খাদ্য শষ্য উতপন্ন করে অত:পর তা থেকে মানুষ পাখী বা অন্য কোন পশু তার কিয়দাংশ ভক্ষন করে তবে এটা তার জন্য সদকা হিসেবে বিবেচিত হবে ( বুখারী ও মুসলিম) 

সর্বোপরি আল্লাহর নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের একটি হাদীছ এখানে সবিশেষ প্রনিধান্যোগ্য । কেঊ যদি জানে আগামী কাল ক্বিয়ামত হয়ে যাবে তারপরে ও কেউ সক্ষম হলে যেন একটি গাছের ছাড়া রোপণ করে। সুবহানাল্লাহ। এর চেয়ে গুরুত্বের আর কি কথা হতে পারে যে বৃক্ষ রোপন আমাদের জন্য কত প্রয়োজন।?  এখন প্রয়োজন হল বিষয়টির গুরুত্ব অনুধাবন করা। আল্লাহ তাওফিক দাতা । 

 

৩৩৪

কোন তথ্যসূত্র নেই

আপনার জন্য প্রস্তাবিত

ইসলামিক ফাউন্ডেশন

To preach and propagate the values and ideals of Islam, the only complete code of life acceptable to the Almighty Allah, in its right perspective as a religion of humanity, tolerance and universal brotherhood and bring the majority people of Bangladesh under the banner of Islam

অফিসিয়াল ঠিকানা: অফিসিয়াল ঠিকানা : ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ, আগারগাঁও, শের-এ- বাংলা নগর, ঢাকা -১২০৭